বিজ্ঞাপন

header ads

লকডাউন অমান্য করা মানে জীবন নিয়ে খেলা ॥ ভারত প্রধানমন্ত্রী



অনলাইন রিপোর্ট করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে দেশ জুড়ে তিন সপ্তাহের লকডাউনের ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। আগামী ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত সেই লকডাউন চলবে। তার জেরে কার্যত স্তব্ধ গোটা দেশ। সেই আবহেই আজ রবিবার 'মন কি বাত'- দেশবাসীকে ফের ঘরবন্দি থাকার বার্তা দিলেন প্রধানমন্ত্রী। একই সঙ্গে বলেছেন, লকডাউন অমান্য করা মানে জীবন নিয়ে খেলা। দেশবাসীকে আশ্বস্ত করেছেন, ''করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধে আমরা জিতবই।''পরিকল্পনা ছাড়া আচমকা লকডাউন ঘোষণা নিয়ে বিরোধীদের সমালোচনার মুখে পড়েছেন মোদি। সাধারণ মানুষও অনেকে অসুবিধার মধ্যে পড়েছেন। সেই সবসমস্যার জন্য প্রথমেই দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চেয়ে নেন মোদী। তবে একই সঙ্গে কেন লকডাউন প্রয়োজন, সেই ব্যাখ্যা দিয়ে বলেছেন, ''রোগের নিয়মই হল শুরুতেই প্রতিরোধ করা। সেই কারণেই লকডাউন ঘোষণা হয়েছে। সবাই সেটা মেনে চলুন। ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন।'' দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে অভিযোগ আসছে, যাঁরা হোম কোয়রান্টিনে আছেন, তাঁদের নানা ভাবে হেনস্থা করা হচ্ছে। সেই প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ''এইধরনের কিছু অভিযোগ শুনেছি। কিন্তু এটা বুঝতে হবে, স্বেচ্ছা কোয়রান্টিনে থাকা পরিবারের সদস্যরা দায়িত্বশীল। তাঁরা আক্রান্ত নন, কিন্তু সংক্রমণের সম্ভাবনা থাকাতেই তাঁরা ঘরবন্দি থাকছেন। তাঁদের সাহায্য করুন।''
লকডাউনের জেরে গৃহহীন, ভিক্ষাজীবী, ভবঘুরেদের খাদ্যসঙ্কট দেখা দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান, আপনার আশপাশে কেউ অভুক্ত থাকলে, তাঁকে যতটা সম্ভব সাহায্য করুন। তাঁদের পারলে খেতে দিন।'' আবার এইমন কি বাতের মধ্যেই কথা বলেছেন দুই করোনা আক্রান্তের সঙ্গে এবং করোনার চিকিৎসা করছেন, এমন দুই চিকিৎসকের সঙ্গে। সবাই প্রধানমন্ত্রীকে তাঁদের অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন। প্রতি মাসের শেষ রবিবার এইরেডিয়ো অনুষ্ঠান করেন প্রধানমন্ত্রী। সারা দেশের মানুষের প্রতি বার্তা দেন। কিন্তু বার পরিস্থিতি অনেক আলাদা। করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে সারা দেশে। সংক্রমণ ঠেকাতে চলছে লকডাউন। এই পরিস্থিতিতে মোদীর বারের মন কি বাত অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা।


 সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা

Post a Comment

0 Comments